August 9, 2022

University Live 24

The Mirror of University Life

হিরো আলমকে লিগ্যাল নোটিশ

1 min read

বিনোদন: বিকৃতভাবে রবীন্দ্র সংগীত গেয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তা প্রচার করায় আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলমকে লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়েছে। `আমারো পরানে যাহা চাই’ রবীন্দ্রসংগীত বিকৃতভাবে গাওয়ায় আশরাফুল হোসেন আলম ওরফে হিরো আলমের বিরুদ্ধে এই লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছেন এক আইনজীবী। হিরো আলমের এসব গানসমূহকে গণ-উৎপাত আখ্যা দিয়ে আগামী ৩০ দিনের মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে অপসারণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) রেজিস্ট্রি ডাকযোগে আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলমের ঠিকানায় এ নোটিশ দিয়েছেন অ্যাডভোকেট হাসান অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটসের স্বত্ত্বাধিকারী বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী খন্দকার হাসান শাহরিয়ার।

নোটিশে ভবিষ্যতে মিউজিক ভিডিও নির্মাণের নামে বিকৃত ও অশুদ্ধ বাংলা শব্দ উচ্চারণ, অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি ও নগ্ন বা অর্ধনগ্ন নৃত্য পরিবেশন এবং অশালীন পোশাক পরিহিত দৃশ্য ধারণ করে সোশ্যাল মিডিয়াতে প্রচার ও প্রকাশ করা থেকে সম্পূর্ণরূপে বিরত থাকার জন্য তাকে বলা হয়েছে।

নোটিশে উল্লেখ করা হয়, সম্প্রতি বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর রচিত জনপ্রিয় রবীন্দ্র সংগীত ‘আমারও পরানো যাহা চায়’ গানটির একটি মিউজিক ভিডিও আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলম ইউটিউব চ্যানেলে প্রচার ও প্রকাশ করেছেন। সেখানে কিছু দৃশ্যে তাকে গিটার হাতে গানটি গাইতে দেখা গেছে। আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলমের গাওয়া গানের কিছু লাইন ও শব্দের সঙ্গে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর রচিত জনপ্রিয় রবীন্দ্র সংগীত ‘আমারো পরানো যাহা চায়’ মূল গানটির লাইন ও শব্দের মিল পাওয়া যায়নি। এছাড়া একইভাবে বাংলাদেশের বিখ্যাত শিল্পী মৌসুমী ভৌমিকের গাওয়া ‘আমি শুনেছি সেদিন তুমি’ গানটিও আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলম গেয়েছেন, যার কিছু লাইন ও শব্দের সঙ্গে মূল গানটির লাইন ও শব্দের মিল নাই।

ইতোপূর্বেও আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলম উগান্ডার সোয়াহিলি ভাষার ‘মোগোয়া জাগোম্বে’ নামে একটি লোকগান করেছেন। সেখানেও মূল গানের সঙ্গে নিজের ইচ্ছামতো নতুন কিছু শব্দ ব্যবহার করেছেন। আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলমের গাওয়া গানগুলো নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে কমেন্ট বক্স ভরে গেছে নানারকম নেতিবাচক মন্তব্যে। অধিকাংশ ব্যক্তিই তার নামে বিকৃতভাবে রবীন্দ্র সংগীত গাওয়ার অভিযোগ তুলেছেন।

লিগ্যাল নোটিশে আরও বলা হয়েছে, গান গাইবার অধিকার সবার আছে, কিন্তু কোনো গান বিকৃতি করার অধিকার কারো নেই। এমন কি গানের বাণিজ্যিক রিমেক বা ব্যবহার করতে গেলেও মূল গায়ক/গায়িকার বা গানের স্বত্ত্বাধিকারীর অনুমতি নেয়াটাও জরুরি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.